প্রেস রিলিজঃ করোনা মহামারীতে অতিরিক্ত সময়ের ফি শতভাগ মওকুফ

January 19, 2021 0 comments admin Categories Notice, stories

ম্যানগ্রোভ ইনষ্টিটিউট এর সকল শিক্ষার্থী, তাদের অভিভাবকগন ও সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে করোনা মহামারীর শুরু থেকেই ম্যানগ্রোভ ইনষ্টিটিউট তাদের শিক্ষার্থীদের সাথে পড়াশোনা ও অন্যান্য বিষয়ে নিয়মিত যোগাযোগ করে আসছে। করোনা মহামারীর কারনে আরোপিত লকডাউন এর শুরু থেকেই ইনষ্টিটিউটের পক্ষ থেকে তাদের পরিবারের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে কলেজে টিউশন ফি পরিশোধের জন্য কোনরুপ তাগিদ বা চাপ প্রয়োগ করা হয় নি । পরবর্তিতে প্রতিষ্ঠান এর ব্যবস্থাপনা কমিটি শিক্ষার্থীদের সামগ্রীক দিক বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্তে উপনিত হয় যে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং এর চার বছর মেয়াদী কোর্সের সময়সীমার থেকে যত বাড়তি সময় প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের যুক্ত থাকতে হবে উক্ত বাড়তি সময়ের সকল ফি ১০০% সবার জন্য মওকুফ করা হবে। ফলে অনেক আগে থেকেই শিক্ষার্থীদের জানানো হয় যে তারা কেবল চার বছর (৪৮ মাস, ৮ সেমিষ্টার) যা স্বাভাবিক সময়ের হিসেব ফি পরিশোধ করবে। ইতিমধ্যে যে বাড়তি সেমিষ্টার ও ১০ মাস হয়ে গিয়েছে তার উপরে কোন ফি বাড়তি প্রদান করতে হবে না। এছাড়া ম্যনগ্রোভ ইনষ্টিটিউটে শিক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত কোন ল্যাব ফি, লাইব্রেরী ফি, উন্নয়ন ফি বা এ জাতীয় নানাবিধ ফি নেই। এমনকি ইনষ্টিটিউট যে টিউশন ফি নেয়া হয় তার বিনিময়ে কোন প্রকার প্রাইভেট টিউশন দরকার হবে না এমন নিশ্চয়তা দিয়ে থাকে।

তবে উল্লেখ্য যে প্রচলিত হিসেব জনিত কারনে চলমান মাস হিসেবে বেতন ধার্য্য করার কারনে অনেকে না বুঝে এটাকে বাড়তি সময়ের ফি হিসেবে বিবেচনা করছে। মূলত তাদের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামের স্বাভাবিক সময়ের (৪৮ মাস ও ৮ সেমিষ্টার) অতিরিক্ত কোন ফি প্রদান করতে হবে না। শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে কোন প্রকার দাবী করার আগেই প্রতিষ্ঠান থেকে ছাত্রছাত্রীদের সুবিধা বিচেনা করে বীগত বছরেই (জুন-২০২০) সবাইকে এ বিষয়ে অবহিত করা হয়। লকডাউনের সময়ে ইনষ্টিটিউটের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীকে প্রতিষ্ঠান ১০০% বেতন ভাতা প্রদান করার শর্তে চাকুরীতে বহাল রেখেছে। যার ফলে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ইনিষ্টটিউটের সকল ক্লাস অনলাইনে চালু রাখার সক্ষমতা রয়েছে এবং ক্লাস চলমান। সাথে সাথে আধুনিক লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে মূল্যায়ন করা হচ্ছে। এসকল বিষয় বিবেচনা করলে প্রতিষ্ঠান এই বাড়তি সময়ে জন্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোন বাড়তি ফি না পেলেও সকল ব্যায় চালিয়ে যাচ্ছে এবং অনলাইন ক্লাস ও কারিগরি কাজে অনেক বাড়তি ব্যায় হচ্ছে যা প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি বড় ধাক্কা। এ কারনে প্রতিষ্ঠানকে টিকিয়ে রাখার জন্য শিক্ষার্থীদেরর  সহায়তার হাত বাড়াতে হবে। একটি প্রতিষ্ঠানকে প্রতিকুল পরিস্থিতি মোকাবেলা করে টিকে থাকার জন্য প্রতিষ্ঠান ও তার ছাত্রছাত্রীদের সকলের সমন্বিত প্রয়াস একান্ত জরুরী। তথাপি ফরম ফিলাপের সময় সকল শিক্ষার্থীরা সাধ্যমত মোট বকেয়ার আংশিক পরিশোধ সাপেক্ষে  পর্ব সমাপনী পরীক্ষার ফরম পুরন করেছে। অতীতে এবং এখনো ম্যানগ্রোভ ইনষ্টিটিউট ও এর শিক্ষার্থীরা পরস্পর চমৎকার সাহানুভুতিশীল সম্পর্কের মাধ্যমে এই প্রতিষ্ঠানকে স্বল্প সময়ের মধ্যে দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি প্রতিষ্ঠানে পরিনত করেছে। আমরা আশা রাখি ইনষ্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা কোন প্রকার গুজব ও ভুল তথ্য অনুসরন না করে প্রতিষ্ঠান থেকে দেয়া ব্যাখ্যা মোতাবেক প্রতিষ্ঠানের এই বিশাল ছাড় দেয়ার মানসিকতাকে উৎসাহিত করে ইনষ্টিটিউটের প্রতি তাদের দায়ীত্ব ও সহযোগীতা অব্যাহত রাখবে।